estrategia bms para opciones binarias opciones binarias analisis de mercado best binary options technical strategy tradingview.binary.com forex factory binary options strategy

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ১,৩৫,৮৯৮ জন জিপিএ-৫, পাশের হার ৮২.৮৭`

ঢাকা (শিক্ষা), ৩১ মে, ২০২০ (বিডি ক্রাইম নিউজ ২৪) : আজ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা/২০২০ ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। চলতি বছর সকল সাধারণ শিক্ষা বোর্ড এবং মাদরাসা ও কারিগরী শিক্ষা বোর্ড মিলিয়ে গড় পাশের হার ৮২.৮৭ ভাগ। গত বছর গড় পাসের হার ছিল ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ। আর এবার সারাদেশে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ জন। ২০১৯ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আজ বেলা ১১টার পর ফেইসবুক লাইভে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরেন। এসময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল সেখানে ছিলেন।

গত ৩ থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন বা ৮২.৮৭ ভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এর আগে সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাধ্যমিকের ফল আনষ্ঠুানিকভাবে প্রকাশ করেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, কোভিড-২০১৯ সংক্রমণের মধ্যে এবার কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই ফল পাঠানো হয়নি। শিক্ষার্থীরা মোবাইল থেকে ‘প্রি-রেজিস্ট্রেশন’ করে রাখলেই ফল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে সেই নম্বরে ফল পৌঁছে যাবে বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি জানিয়েছে।

বিগত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা হলেও এবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে তা সম্ভব হয়নি। করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা করা হচ্ছে বলে ফল প্রকাশের দিন কোনো অবস্থাতেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমায়েত না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। ফল প্রকাশের দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর অফিসও বন্ধ রাখতে বোর্ডগুলোর পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ফেইসবুক লাইভে জানান, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার সারাদেশে ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন শিক্ষার্থী পাস করেছে। এবছর শুধু এসএসসিতে পাসের হার ৮৩.৭৫ ভাগ । এবার যশোর বোর্ডে ৮৭.৩১ ভাগ , ঢাকা বোর্ডে ৮২.৩৪, রাজশাহী বোর্ডে ৯০.৩৭, দিনাজপুর বোর্ড ৮২.৭৩, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৮৪.৭৫, সিলেট বোর্ডে ৭৮.৭৯, বরিশাল বোর্ডে ৭৯.৭০, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৮০.১৩ এবং কুমিল্লা বোর্ডে ৮৫.২২ শতাংশ পাস করেছে। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাশের হার ৭২.৭০ শতাংশ। আর মাদ্রাসা বোর্ডে পাশের হার ৮২.৫১ শতাংশ।

এবার ঢাকা বোর্ডে ৩৬,০৪৭ জন জিপিএ-৫, রাজশাহী বোর্ডে ২৬,১৬৭ জন জিপিএ-৫, যশোর বোর্ডে ১৩,৮২৪ জন জিপিএ-৫, দিনাজপুর বোর্ড ১২,০৮৬  জন জিপিএ-৫, কুমিল্লা বোর্ডে ১০,২৪৫ জন জিপিএ-৫, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৯,০০৮ জন জিপিএ-৫, মাদ্রাসা বোর্ডে ৭,৫১৬ জন জিপিএ-৫, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৭,৪৭৬ জন জিপিএ-৫, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৪,৮৬০ জন জিপিএ-৫, বরিশাল বোর্ডে ৪,৪৮৩ জন জিপিএ-৫ এবং সিলেট বোর্ডে ৪,২৬৩ জন জিপিএ-৫ পেয়েছেন। 

এছাড়াও এবছর বিদেশের কেন্দ্রে ৩৩৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করে। এর মধ্যে পাশ করেছে ৩১৮ জন। মোট পাশের হার ৯৪.৬৪ ভাগ।
অন্যবারের মত এবারও যে কোনো মোবাইল থেকে রেজিস্ট্রেশন করে ঘরে বসেই মাধ্যমিকের ফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। এসএসসির ফল জানতে SSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২০ লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রি-রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

দাখিলের ফল পেতে দাখিল লিখে একটি স্পেস দিয়ে Mad লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২০ লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রি-রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন। আর কারিগরি বোর্ডের এসএসসির ফল পেতে SSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে Tec লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২০ লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে প্রি-রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।

যেসব শিক্ষার্থী প্রি-রেজিস্ট্রেশন করে রাখবেন ফল প্রকাশের পর তাদের মোবাইল নম্বরে ফলাফল পৌঁছে যাবে। এছাড়া নিজ নিজ শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকেও ফল জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *