মাদ্রাসা শিক্ষক কর্তৃক তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীর শ্লিলতাহানী

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি, মোঃ জাহিদুর রহমান তারিক, ১৮ জুলাই, ২০১৯ (বিডি ক্রাইম নিউজ ২৪) : ঝিনাইদহে দিনের পর দিন মাদ্রাসা শিক্ষক কর্তৃক তৃতীয় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীর শ্লিলতাহানীর ঘটনা ঘটেছে। তদন্তে এই ঘটনার প্রমাণও পেয়েছে পুলিশ, দিয়েছে চার্জশীট । তবে ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে শিক্ষক। এদিকে মাদ্রাসার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালী মহলের ইন্ধনে শিশু শিক্ষার্থীর শ্লিলতাহানীর ঘটনা ধামাচাপা দিতে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ঐশিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার হরিন্দিয়া গ্রামে হাজী আলতাফ হোসেন হরিন্দিয়া আলিম মাদ্রাসার ক্বারী শিক্ষক আবু তাহের তৃতীয় শ্রেণী পড়ূয়া এক শিক্ষার্থী কে স্কুলে ৩দিন ধরে শ্লিলতাহানী ঘটায়। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটে জুন মাসের ১৮, ১৯ ও ২০ তারিখে। শিক্ষক স্কুল শেষে শিশুটিকে ক্লাসে বসিয়ে তার পেট, যৌনাঙ্গ সহ শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। এ ঘটনায় শিশুটি শরীরে ব্যাথা অনুভব করতে থাকলে আর মাদ্রাসায় যেতে অস্বীকৃতি জানায় বাবা-মা কে।

কেন যেতে চায় না তা জানতে চাইলে শিশুটি এমন ভয়াবহ এক বিষ্ফোরক তথ্য দেয় বাবা-মা কে। তবে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ঐ মাদ্রাসার বিরুদ্ধে । স্কুলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েও হরিন্দিয়া গ্রামের ভ’ক্তভোগী পরিবার পায়নি কোন প্রতিকার। এমনটি জানিয়েছে শিশুটির বাবা জামির হোসেন। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীও এঘটনার বিচার দাবি করেছেন।

এদিকে মাদ্রাসাটির অধ্যক্ষ মুহা: আবদুর রশিদ বলছেন শিক্ষকরা নৈতিক চরিত্রের অধিকারী বলে জানতেন। কিন্তু হঠাৎ এমনটি ঘটেছে। বিষয়টি নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি বৈঠক করেছে এবং পরবর্তী বৈঠকে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এটি ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে অধ্যক্ষ বলছেন ঐ শিক্ষকের একটি পদত্যাগপত্র পাওয়া গেছে এবং দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এদিকে ঘটনার তদন্ত ও বিচার দাবি করছেন মাদ্রাসার বেশকিছু শিক্ষকও। অন্যদিকে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় কোটচাঁদপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে শিশুটির বাবা। পুলিশ তদন্তে নামে ঘটনাটির, তদন্তে শিশুটির সাথে যৌন হয়রানী ও শ্লিলতাহানীর সত্যতা পায় তারা। কোটচাঁদপুর থানা পুলিশ মাদ্রাসার ক্বারী শিক্ষক আবু তাহেরের বিরুদ্ধে চার্জশীট দিয়েছে।

কোটচাঁদপুর থানার ওসি (তদন্ত) ইমরান হোসেন জানান, এই শিক্ষক ইতিপূর্বেও শ্লিলতাহানি ও নানা অসামাজিক কার্যক্রমের সাথে জড়িত বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। শিক্ষা মন্ত্রনালয় সহ সংশ্রিষ্ট শিক্ষা দফতরগুলোতে তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ও তদন্ত রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে বলেও জানায় পুলিশ।

আরও খবরঃ-

ঝিনাইদহ সরকারী বালক বিদ্যালয়ে নীতিমালা বহির্ভুত ভর্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসুচি

মোঃ জাহিদুর রহমান তারিক,

ঝিনাইদহ সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে বিভিন্ন শ্রেনীতে অর্থের বিনিময়ে নীতিমালা বহির্ভুত ছাত্রভর্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে সচেতন মহল ও দুর্নীতি বিরোধী অভিভাবকবৃন্দ। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সামনে ব্যানার ও ফেষ্টুন হাতে দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামানের শাস্তির দাবীতে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা এই মানববন্ধন কর্মসুচিতে অংশ নেন।

মানববন্ধন কর্মসুচিতে অভিভাবকদের মধ্যে আনোয়ার হোসেন, বশির উদ্দীন, আসলাম হোসেন, কেসি কলেজের ছাত্র ইমরান হোসেন, আশরাফুল ইসলাম ও শাহিন রহমান বক্তব্য রাখেন। অভিভাবকদের অভিযোগ সরকারের ভর্তি নীতিমালা উপেক্ষা করে ঝিনাইদহ সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামান ছাত্র প্রতি আড়াই লাখ টাকা করে নিয়ে শহরের ধনাঢ্য পরিবারের সদস্যদের ভর্তি করেছে।

এ ভাবে তিনি ২৮ জনকে বিভিন্ন শ্রেনীতে ভর্তি করেছেন যা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষার খুলনা বিভাগীয় পরিচালক প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ সরেজমিন তদন্ত করে তৃতীয় শ্রেনীতে ৫ জনের অবৈধভাবে ভর্তির সত্যতা পেয়েছে। অভিভাবকবৃন্দ প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামানের অপসারণ ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।

“মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুশীল অর্থনীতির অগ্রগতি” প্রতিপাদ্যে ঝিনাইদহে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন

মোঃ জাহিদুর রহমান তারিক,

“মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুশীল অর্থনীতির অগ্রগতি” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়েছে। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন কমিটির আয়োজনে বৃহস্পতিবার সকালে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আরিফ-উজ-জামান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা মৎস্য অফিসার আলফাজ উদ্দিন শেখ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. আব্দুর রশিদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরতী দত্ত, সাবেক উপাধ্যক্ষ এন এম শাহজালাল, সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামান, সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম সরওয়ার।

এর আগে বেলুন উড়িয়ে সপ্তাহের উদ্বোধন করে ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। আলোচনা সভা শেষে উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *