কেক ইন্টারন্যাশনাল লন্ডন প্রতিযোগিতায় ৮০ টি দেশকে টপকে বাংলাদেশের তাসনুতা’র স্বর্ণপদক প্রাপ্তি

লন্ডন, ০৮ এপ্রিল, ২০১৯ (বিডি ক্রাইম নিউজ ২৪) : কেক ইন্টারন্যাশনাল লন্ডন প্রতিযোগিতায় ৮০ টি দেশকে টপকে প্রায় ৭০০ প্রতিযোগীকে পিছনে পেলে বাংলাদেশের তাসনুতা আলম ২ টি স্বর্ণপদক ছিনিয়ে এনেছেন । চলতি বছরের ৪-৬ এপ্রিল মার্কিন যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো ‘কেক ইন্টারন্যাশনাল লন্ডন’ প্রতিযোগিতা। যেখানে বিশ্বের মোট ৮০টি ভিন্ন দেশ থেকে ৭০০ জন প্রতিযোগীদের সাথে লড়াই করে, ৩১ জন বিচারকের চুলচেরা বিচার-বিশ্লেষন শেষে দুইটি (একটি যৌথভাবে) স্বর্ণ, দুইটি রৌপ্য ও একটি ব্রোঞ্জ পদক জিতেছেন বাংলাদেশের মেয়ে কেক-আর্টিস্ট তাসনুতা আলম।

মোট চারটি ভিন্ন বিভাগের পাঁচটি কেক নিয়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন তিনি। যার মাঝে চারটি একক ও একটি যৌথ বিভাগ ছিল। তাসনুতার অংশ নেওয়া বিভাগগুলো ছিলো- কাপকেকস, স্মল এক্সকিউটিভ, ডেকোরেটিভ প্লাক ও পিন আপ গার্লস কোলাবরেশন। যেখানে কাপকেকস বিভাগে ৯৪ শতাংশ নাম্বার পেয়ে স্বর্ণপদক লাভ করেন গুণী এই শিল্পী।

 

এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো কেক ইন্টারন্যাশনাল প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম দু’বারে ব্রোঞ্জ পদক লাভ করলেও, এবারই প্রথম স্বর্ণপদক লাভ করেন তিনি। স্বর্ণপদক প্রাপ্তির অনুভূতির কথা বলতে গিয়ে তাসনুতা বলেন, প্রথম বার গোল্ড জিতে, এ এটা একটা অদ্ভুত অনুভতি. প্রথমে তো বিশ্বাস হচ্ছিলো না. আমি ভেবেছি হয়তো সিলভার আসবে বড়োজোর. দুইটা গোল্ড জানার পর আমি কান্নায় ভেঙে পড়ি। দেশে এবং দেশের বাইরে সব জায়গাতেই দেশ কে নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা l আমার কাছে এটা এমন একটা জায়গা যেখান থেকে নিজেকে আলাদা করতে পারি না l কাজ শুরু হয়ে গেছে খুব শীঘ্রই রিভিল করবো।

 

 

তাসনুতা পেশাগতভাবে কেক তৈরি শুরু করেন ছয় বছর আগে থেকে। তবে একদম প্রথম কেক বানানোর হাতেখড়ি হয়েছে তার মা কাওসার আলম এর কাছ থেকে। তাসনুতা জানান, তিনি জনপ্রিয় কেক আর্টিষ্ট ডন বাটলার, পল ব্রাডফোর্ড, রবার্ট হায়নেস এর কাছ থেকে কেক তৈরি শিখেছেন। শুধু তাই নয়, ২০১৭ সালে তিনি কেক ডেকোরেটিং এর উপরে ‘মাষ্টার্স অফ কেক ডেকোরেটিং’ কোর্স করেছেন PME লন্ডন ইউকে থেকে।

 

 

২০০৮ সালে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ থেকে অ্যাকাউন্টিং এ ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট হওয়া তাসনুতা বর্তমানে স্বামী আহমেদ সাদিক ও সন্তান আদিয়ান সাদিককে নিয়ে প্রবাসে বাস করছেন। কেক তৈরি করাই তাসনুতার জীবনের প্যাশন। এই কাজটি থেকে নিজেকে দূরে রাখা সম্ভব নয় বলে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশে ও দেশের বাইরে সব জায়গাতেই দেশকে নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা আছে। সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করা শুরু হয়ে গেছে। দ্রুতই সেটা সম্পর্কে সবাইকে জানানো হবে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *